বৃষ্টির দিনে অফিস নিজের যত্ন নিন

0
18
টার্ম মুছে ফেলুন: চুল চুলটার্ম মুছে ফেলুন: পোশাক পোশাকটার্ম মুছে ফেলুন: ইলেকট্রনিক ডিভাইস ইলেকট্রনিক ডিভাইসটার্ম মুছে ফেলুন: প্রয়োজনীয় কাগজপত্র প্রয়োজনীয় কাগজপত্রটার্ম মুছে ফেলুন: শরীর শরীরটার্ম মুছে ফেলুন: পাদুকা পাদুকাটার্ম মুছে ফেলুন: জ্বর জ্বরটার্ম মুছে ফেলুন: সর্দি সর্দিটার্ম মুছে ফেলুন: মাথাব্যথার মাথাব্যথারটার্ম মুছে ফেলুন: লেজার প্রিন্টারে প্রিন্ট লেজার প্রিন্টারে প্রিন্টটার্ম মুছে ফেলুন: ঔপন্যাসিক ঔপন্যাসিক
বৃষ্টির দিনে অফিস নিজের যত্ন নিন

এখন শ্রাবণ। যখন-তখন নামবে এখন বৃষ্টি। ভিজে যাবে পোশাক। কাদা লাগবে পায়। অফিসের বেশবাস তার পরও ঠিক রাখবেন যেভাবে।

প্রচ গরমে অতিষ্ঠ, বাসের জন্য দাঁড়িয়ে আছেন রাস্তায়। অসহ্য অবস্থার মধ্যে হঠাৎ করে নামল বৃষ্টি। একটু অন্যরকম অনুভূতি, ক্ষণিকের ভাললাগা, হঠাৎ করে যেন কবি হয়ে যেতে ইচ্ছে করে। কিন্তু এই বৃষ্টি ভেজার বিপত্তিটা অন্যখানে। নৈসর্গিক ভাললাগায় হয়ত ভুলেই গেছেন একটু পরে আপনার অফিস, দিনের কর্মব্যস্ততা গ্রাস করবে আপনাকে। অনিচ্ছা সত্ত্বেও যখন বৃষ্টিতে ভিজে যান, তারপর অফিস এলে ঝুট-ঝঞ্ঝাটের অন্ত থাকে না। বিশেষ করে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কক্ষে যাদের সারা দিন কাজ করতে হয়, তাদের বিপত্তির শেষ নেই। একবার ভিজে গিয়ে অফিস ঢুকলে ঠান্ডার সঙ্গে এ পানি গায়ে বসে যাবে। তারপর শুরু হবে সর্দিজ্বরের যন্ত্রণা। একটু সতর্ক হলে বৃষ্টিভেজা থেকে রেহাই পাওয়া যেতে পারে। কিন্তু বৃষ্টিতে একবার ভিজে গেলে তারপর কী করা যায়।

চুল :

ভিজে অফিস এলে সবার আগে মাথার চুল শুকিয়ে ফেলতে হবে। তবে চুল ভিজতে না দেয়াটাই বুদ্ধিমানের কাজ। মৌসুমি বৃষ্টিতে অনেক উপাদান থাকে, যেগুলো চুলের জন্য ক্ষতিকর। এজন্য যাদের চুল বড়, বিশেষ করে মেয়েরা সঙ্গে একটি স্কার্ফ রাখতে পারেন। বৃষ্টির সময় মাথায় সেটি পেঁচিয়ে নিলে অন্তত চুলগুলো ভেজার হাত থেকে বাঁচবে। সেই সঙ্গে বৃষ্টি থেকে এসে সঙ্গে সঙ্গে মাথার চুল শুকিয়ে নিতে হবে। বাতাসে চুল না শুকিয়ে প্রথমে মুছে ফেলাটা ভাল। অন্যদিকে ছাতা রাখতে না পারলেও অন্তত একটি ক্যাপ সঙ্গে রাখা যেতে পারে, এতে মাথায় সরাসরি বৃষ্টির পানি পড়বে না। সব থেকে সতর্ক থাকা প্রয়োজন সরাসরি এসির নিচে বসে যারা কাজ করেন তাদের। ভেজা মাথা নিয়ে সেখানে ১০ মিনিট বসলেও ঠা া লেগে যাবে। এর ঠিক পরদিন থেকে জ্বর, সর্দি, মাথাব্যথার মতো সমস্যা দেখা দেবেই।

পোশাক :

বহুদিন থেকেই লাইফস্টাইল বিশেষজ্ঞরা গবেষণা করে আসছেন বৃষ্টিদিনের উপযোগী পোশাক নিয়ে। আসলে কোন ধরনের পোশাক এদিনে বেশি উপযোগী, এটা নিয়ে তারা নিশ্চিত করে কিছু বলতে পারেননি। তবে গবেষণায় দেখা গেছে বৃষ্টিদিনেও সুতির পোশাক বেশ উপযোগী। বিশেষ করে এটা যেমন হুট করে ভিজে যায়, তেমনি পানি চুষে নেয়া কিংবা শুকিয়ে ফেলার ক্ষেত্রেও বেশ উপযোগী। অন্যদিকে সুতির পোশাক ব্যবহার করলে কিছু পানি পোশাক শোষণ করে নেয়, যা সরাসরি গায়ে বসার সম্ভাবনা থাকে না। তবে সুতি কিংবা সিনথেটিক যে ধরনের পোশাকই পরা হোক না কেন, অফিসে ঢোকার আগে এটি শুকিয়ে নেয়া উচিত। সম্ভব হলে বর্ষাকালের জন্য সঙ্গে একটি সিনথেটিক কিটব্যাগ রাখুন। তাতে আপনার প্রয়োজনীয় আরেকটি পোশাক রেখে দিতে পারেন। অফিসে প্রবেশ করে ওয়াশর মে গিয়ে পাল্টে আসুন ভেজা পোশাক।

আরও জানুনঃকর্মক্ষেত্রে নিজেকে মানিয়ে নিতে

ইলেকট্রনিক ডিভাইস :

বৃষ্টিতে ভিজে গেলে সব থেকে বিপত্তিতে পড়তে হয় ইলেকট্রনিক ডিভাইস নিয়ে। বিশেষ করে সেলফোন, হাতঘড়ি থেকে শুরু করে বিভিন্ন স্মার্ট ডিভাইস যেমন- আইপড, আইপ্যাড, ট্যাব, ক্যামেরা প্রভৃতিতে পানি গেলে সঙ্গে সঙ্গে বিকল হয়ে যাবে। এগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সঙ্গে একটি সিনথেটিক কিংবা প্লাস্টিকের ব্যাগ রাখুন। আর কোন কারণে সেলফোনে পানি গেলে সঙ্গে সঙ্গে ব্যাটারি খুলে ফেলুন। তারপর মেকারের সঙ্গে যোগাযোগ করে এর উপযুক্ত পরিচর্যা শেষে অন করুন। অন্যথায় ভেজা ডিভাইসে বিদ্যুৎ প্রবাহ গিয়ে সেটি পুরোপুরি বিকল হয়ে যেতে পারে। পাশাপাশি হালকা পানির ছোঁয়া লাগা সেলফোন চার্জে লাগাবেন না।

প্রয়োজনীয় কাগজপত্র :

অফিসের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে বৃষ্টির দিনে সব থেকে আতঙ্কে দিন কাটাতে হয়। বিশেষ করে অসাবধনতাবশত এগুলো ভিজে গিয়ে নানা বিপত্তি বাধাতে পারে। লেজার প্রিন্টারে প্রিন্ট করা না হলে কাগজে অল্প পানির ছোঁয়ায়ই সব লেখা উঠে যেতে পারে। এক্ষেত্রে সতর্ক থাকুন। সব কাগজ নিরাপদ রাখতে দুই স্তর বিশিষ্ট প্লাস্টিকের ফাইল ব্যবহার করুন।

শরীর :

বৃষ্টিতে ভেজা শরীর না শুকিয়ে কোন অবস্থায়ই অফিসের কাজ শুরু করবেন না। এক্ষেত্রে সঙ্গে একটি তোয়ালে কিংবা গামছা রাখতে পারেন। ওয়াশরুমে গিয়ে গা, হাত-পা মুছে নিয়ে তারপর সম্ভব হলে পোশাকটি পাল্টে ফেলুন। আর ভেজা শরীর নিয়ে বাসায় ফিরে অবশ্যই একবার গোসল করে নেবেন।

পাদুকা :

বৃষ্টির দিনে সব থেকে বেশি সমস্যায় পড়তে হয় পায়ে জুতো জোড়া নিয়ে। কোন ধরনের জুতা এ সময়ের জন্য বেশি উপযোগী, তা নিয়ে ভাবনা-চিন্তার অন্তনেই। তবে চামড়ার জুতা থেকে প্লাস্টিক কিংবা ফাইবারই এ সময়ের জন্য বেশি উপযোগী। অন্যদিকে মেয়েরা চাইলে সঙ্গে একজোড়া হালকা চপ্পল রাখতে পারেন। ছেলেরা অফিসে ডেস্কের নিচে একটা আলাদা স্যান্ডেল রাখতে পারেন আপতকালে ব্যবহারের জন্য।

এত বিপত্তির পরও বিখ্যাত ঔপন্যাসিক ভ্লাদিমির নাবাকভ বলেছেন, ‘Do not be angry with the rain; it simply does not knwo hwo to fall upwards.’ তাই বৃষ্টির দিনে সাবধান হন এবং সুস্থ থাকুন।

দৈনিক জনকন্ট,৩১ জুলাই ২০১৮

 

LEAVE A REPLY